Why Nobody Cares About Fathers Day 2020?

Share:
বাবা মানে একজন মহানায়ক, একজন বন্ধু, পথপ্রদর্শক আর আদর্শ। আমাদের জীবনে বাবার অবদান অপরিসীম।সর্বস্ব দিয়ে হলেও সন্তানকে লালন-পালন  করে মানুষ করার জন্য বাবা কোনো কিছুতেই পিছপা হন না।
Happy Fathers Day 2020
Fathers-day-2020

সময় স্রোতের মতো বয়ে যায়। সেই ছোট্ট বাচ্চাটা একদিন নিজের পায়ে চলতে চলতে, দৌড়াতে শুরু করে। ছোট্ট মুখের সরল হাসিটা একদিন, যান্ত্রিক হয়ে উঠে। প্রাণ খুলে হাসা হয় না। যদিও হাসে তা প্রয়োজনে। এত কিছুর মাঝে একদিন বাবা নামের সেই মহানায়ক জীবন থেকে হারিয়ে যায়।পৌঁছে যায় চির নিদ্রার দেশে।

হয়তো বহুবার বলতে চেয়েও অনেকেরই বলা হয়নি, বাবা তোমাকে ভালোবাসি। বাবা তুমিই আমার আদর্শ, অনুপ্রেরণা। এমন আরো কতো কথা বলার থাকে। তবে সুযোগ হয়ে ওঠে না।

যদি দেরি না করে আপনিও যদি আপনার বাবাকে নিয়ে অনুভূতি গুলো শেয়ার করতে চান, তাহলে ২১ শে জুন ২০২০ একটা অসাধারণ দিন হতে যাচ্ছে। 

কারণ সারাবিশ্বের প্রায় ৪০ টি দেশে প্রতিবছর জুন মাসের তৃতীয় রবিবার কে ফাদার্স ডে হিসেবে পালন করা হয়। 

অনেকেই দেখছি, এদিনকে কিভাবে উদযাপন করা যায়, কি উপহার দেওয়া যায়, সে তালিকা তৈরি করতেই ব্যস্ত।

কিন্তু, বাবা নামের সেই হিমালয় কে শেষ বয়সে হয়তোবা প্রীতি উপহারটুকু প্রয়োজন পড়বে না। প্রয়োজন পড়বে আমার আপনার প্রত্যেকের আন্তরিক ভালোবাসা, শ্রদ্ধা পাশে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার।

তাই উপহারের তালিকা তৈরি না করে, এদিন আপনি আপনার মনের কথা খুলে বলতে পারেন আপনার বাবাকে।


এটি কোনো, জাতীয় ছুটির দিনের তালিকা পরে না।

আর পৃথিবীর বাবা  সূর্য বললে ভুল হবে না। বৈজ্ঞানিক ভিত্তি অনুযায়ী, পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা দিন হচ্ছে একুশে জুন।  তাই একই দিনে পৃথিবী তার বাবার কাছে সবচেয়ে বেশি সময় থাকলো, আর সন্তানরাও বাবার পাশে থাকলো।

 ১৯১০ সাল থেকে এই দিনটি উদযাপনের পিছনে সুনুরা স্মার্ট ডুডের উদ্যোগী মূলত উল্লেখযোগ্য।প্রতিবছর আমেরিকায় পালিত হওয়া মাতৃ দিবস থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে, ইনি পিতৃ দিবস পালনের প্রস্তাব করেন। ১৬ বছর বয়সে মাকে হারান, তারপর এবং ৫ ভাই-বোনকে লালন-পালন করেন বাবাই। মূলত ওর বাবার জন্মদিন ছিল পাঁচ জুন। সেদিনটাকে পিতৃ দিবস হিসেবে ঘোষণার দাবি করেছিলেন। পরবর্তী সময়ে ১৯ জুন ১৯১০ সালে এই দিনটি প্রথম উদযাপন করা হয়। শীঘ্রই আশেপাশের শহর অঞ্চলের এই দিনটি জনপ্রিয়তা লাভ করে। তারপর ধীরে ধীরে প্রতি বছর এ দিনটি পালন শুরু করা হয়। তারপর ১৯৭২ সালের বিল এনে ফাদার্স ডে প্রথম উদযাপন করা হয়।

দিনটি পালনের ইতিহাস বর্তমান যাই হোক আপনি কতটা আপনার বাবার পাশে দাঁড়ালেন কতটা খুশি রাখলেন কতটা কৃতজ্ঞতা স্বীকার হল সেটাই আসল।

পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে উদযাপন করা বিশেষ বিশেষ দিনগুলো সম্বন্ধে জানার জন্য ফলো করুন।

কোন মন্তব্য নেই

Please dont enter any spam link in the comment box.

_M=1CODE.txt Displaying _M=1CODE.txt.