চীন ও ভারত সীমান্তে সৈন্য সংখ্যা বৃদ্ধি করছে।

Share:

চীন ভারত কে ক্রমশ কোণঠাসা করতে চাইছে। চীনের সীমান্ত  অতিক্রম করে তারা ভারতের ভেতরে ঢুকে পড়ছে যে কোন সময়। লাদাকের যে সমস্ত গ্রাম গুলির রয়েছে সেই গ্রামের মধ্যে ঢুকে পড়েছেন তারা। ভয় দেখাচ্ছে সাধারণ মানুষকে। ঐ সমস্ত গ্রামবাসীদের কে উস্কানি দিচ্ছে। যদিও ভারতীয় সেনা সঙ্গে সঙ্গে ওই জায়গায় এসে চীনকে হটিয়ে দেয়। চীন এবং ভারতের মধ্যে প্রায় সময়ই একে অপরের সঙ্গে যুদ্ধ করতে হচ্ছে। তবে সেই যুদ্ধ বন্দুকের নলে নয় কখনো ধস্তাধস্তি কখনো সীমান্ত থেকে বের করে দেওয়া এই নিয়েই চলছে চীন এবং ভারতের লড়াই। 

যদিও দুই হাজার কুড়ি সালে কুড়িজন ভারতীয় ভারতীয় সৈন্য কে হত্যা করেছিল  চীন ।ভারতের দাবি চীনের ও কয়েকজন সৈন্যকে তারাও খতম করেছিল। ভারতের সেই বীর সন্তানদের কে সম্মান জানাতে ভোলেননি ভারত। সরকার চীন আস্তে আস্তে তাদের সীমান্তে বিভিন্ন ধরনের অস্ত্রশস্ত্র জোগাড় করতে আরম্ভ করেছে। পিছিয়ে নেই ভারত । তারাও সীমান্তে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে যুদ্ধের পরিস্থিতি মোকাবিলা জন্য বিভিন্ন ধরনের শক্তি বাড়াচ্ছে । 

 ভারতের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে চীনের এই দাদাগিরি কোন রকম ভাবেই তারা সহ্য করবেন না । ইতিমধ্যেই সীমান্তে শক্তি বাড়ানোর জন্য  পূর্ব লাদাকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা  বরাবর প্রথমবার হাউজার রেজিমেন্ট কে নাইন বজ্র মোতায়েন করা হয়েছে। ভারত এই বজ্র চোখের পলকে৫০ কিলোমিটার দূরে থাকা সত্ত্বেও ঘাঁটিকে নিশ্চিহ্ন করতে পারে। 

সংবাদ সংস্থাকে সেনাপ্রধান জেনারেল এম এম নারায়ণ জানান দুর্গম এলাকাতেও সাফল্যের সঙ্গে কাজ করতে পারে এই বজ্র । তিনি জানান যে কোন  সময় যুদ্ধ বাধলে     প্রস্তুত ভারতীয় সেনা ।উপত্যকায় গতবছর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর পূর্ব লাদাখে আগ্রাসী কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে চীন । ভারতে এখনো পর্যন্ত ধৈর্য ধরে রয়েছে। কিন্তু চীন যদি রক্তচক্ষু দেখায় আমরাও পিছুপা হবো না। আমরাও চীনের সীমান্ত ঢুকে চিনা সৈন্যদের খতম করব । এরইমধ্যে বজ্র কে অত্যাধুনিক করা হয়েছে বলে জানানো হয় সেনাবাহিনীর তরফ থেকে। যাতে  পাহাড়ি অঞ্চলে কাজ করতে পারে। 

বর্তমানে ভারতের প্রায়১০০ টিরও বেশি বজ্র কামান রয়েছে  । এর আগে  কারগিলে বজ্র সফল পরীক্ষা সম্পন্ন করেছিল। সেনাবাহিনী সীমান্ত নিয়ে চীন এবং ভারত যে টানাপোড়েন চলছে দুই পক্ষের মধ্যে এখনো তার সংকট মেটেনি। এই বজ্র৭১ কেজি ওজন পর্যন্ত বোমা নিক্ষেপ করতে সক্ষম ।২০১৮ সালের ভারতীয় সেনার হাতে কে নাইন বজ্র কামান তুলে দিয়েছিল সরকার।

 এখনো পর্যন্ত ভারত শুধুমাত্র বজ্র কামান সীমান্তে মোতায়েন করেছে। চীন যদি সীমান্ত পেরিয়ে আবার ঢোকার চেষ্টা করে তখন আমরা আর রিয়াদ করবোনা। যে কোন যুদ্ধের সঙ্গে সেনাবাহিনী প্রস্তুত । প্রসঙ্গত উল্লেখ্য চিনা যেমন সৈন বাড়ানোর প্রস্তুতি চালাচ্ছে। ভারতীয়রাও পিছিয়ে নেই তারা সীমান্তে সৈন্য বাড়াচ্ছে।

কোন মন্তব্য নেই

Please dont enter any spam link in the comment box.

_M=1CODE.txt Displaying _M=1CODE.txt.